• মঙ্গলবার, আগস্ট ৪, ২০২০

ইয়াসমীনের সঙ্গে সিলেটের সেই ‘করোনা প্রতারক’ ডা. শাহ আলমের প্রতারণা!

সিলেটের জৈন্তাপুরের সেন্ডমার্ক এগ্রো ফার্ম লি. এর এমডি ইয়াসমীন আক্তারের সঙ্গেও প্রতারনা করেছেন করোনার ভূয়া সার্টিফিকেট বিক্রির অভিযোগে ৪ মাসের দন্ডপ্রাপ্ত চিকিৎসক শাহ আলম সাগর। বিরোধপূর্ন ওই কোম্পানীর শেয়ার তিনি গোপনে কিনে নেন। পরে ওই ফার্মের জমি দখলে নিতে তিনি ভয়ভীতিও প্রদর্শন করেন।

প্রতারনার শিকার হওয়া বিধবা ইয়াসমীন আক্তার জানান- ২০১৫ সালে তার মাকে নিয়ে ডা. শাহ আলম সাগরের চেম্বারে গিয়েছিলেন। সেই থেকে পরিচয় ডা. সাগরের সঙ্গে। তিনি নিজেকে ওসমানী হাসপাতালের  ডাক্তার পরিচয় দেন। কুমিল্লায় তাদের বাড়িও পাশাপাশি এলাকায়। এ কারনে ডা. শাহ আলমের সঙ্গে তাদের পারিবারিক সর্ম্পক হয়। এই সম্পর্কের সূত্র ধরে ডা. শাহ আলম তাদের পরিবার ও ব্যবসা সংক্রান্ত অনেক কিছু জানতেন।

তিনি জানান- স্বামী আব্দুস সাত্তারের মৃত্যুর পর জৈন্তাপুরের সেন্ডমার্ক এগ্রো ফার্ম লি. মালিকানা নিয়ে কোম্পানীর পরিচালক সুনীল নাথ, বিবেকানন্দ নাথের সঙ্গে তার বিরোধ চলছে। এই বিরোধের সুযোগ নিয়ে ডা. শাহ আলম তার প্রতিপক্ষের কাছ থেকে অবৈধভাবে শেয়ার কিনে নেন। এরপর ফার্মের কর্তৃত্ব নিতে সে একাধিকবার হুমকি দিয়েছে। তিনি জানান- ২০১৯ সালের দায়ের করা একটি মামলায় পুলিশি তদন্তে আব্দুশ শুকুর, ডা. শাহ আলম ও গোলাম রব্বানীর কাছে কোম্পানী আইন অমান্য শেয়ার বিক্রির বিষয়টি প্রমানিত হয়েছে। এরপর ২০১৯ সালের ১৭ই ডিসেম্বর তিনি ডা. শাহ আলম সহ ৪ জনকে আসামি করে আদালতে মামলাও করেন। 

উল্লেখ- সিলেটে গত ১৯ শে জুলাই নগরীর কাজলশাহ এলাকার মেডিনোভা চেম্বার থেকে ডা. শাহ আলম সাগরকে গ্রেপ্তার করে র্যা ব। এর আগে প্রবাসীদের কাছে করোনার ভূয়া সার্টিফিকেট বিক্রির দায়ে সিলেটের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাকে চার মাসের কারাদন্ড ও ১ লাখ টাকা জরিমানা করেন। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক না হয়েও ডা. শাহ আলম নিজেকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রাইভেট চেম্বারে রোগী দেখছিলেন।

Leave a Reply

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x