• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯

মাসুদা ভাট্টির মামলার জামিন মঞ্জুর করেনি আদালত:ব্যারিস্টার মঈনুল আবারও কারাগারে।

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টির দায়ের করা মানহানি মামলায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা  ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর  নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল  ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। 

আদালতে মইনুলের পক্ষে জামিন শুনানি করেন, ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি  গোলাম মোস্তাফা, আইনজীবী আমিনুল ইসলাম ও মহিউদ্দিন চৌধুরীসহ আরো ১৫/২০ জন আইনজীবী। মইনুল হোসেনের আইনজীবী গোলাম মোস্তফা খান আদালতকে বলেন, আসামি বয়স্ক, অসুস্থ মানুষ। যে অভিযোগে মামলা তা জামিন যোগ্য। এরপর আদালত শুনানি শেষে মইনুল হোসেনের জামিনের আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
মইনুলের আইনজীবী ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তফা খান জানান, এই আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হবে। ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের আইনজীবী এডভোকেট মহিউদ্দিন চৌধুরী  জানান, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আদেশ অনুযায়ী ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে মইনুল হোসেন হাজির হয়ে নিয়মিত জামিন আবেদন করেন। কিন্তু কোর্ট জামিনযোগ্য ধারা হওয়ার পরেও তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে।

এর আগে গত বছরের ২১শে অক্টোবর মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে মানহানির মামলা করেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি। দণ্ডবিধির ৫০০, ৫০৬ ও ৫০৯ ধারায় মইনুলের বিরুদ্ধে মামলা করেন মাসুদা ভাট্টি। আদালত মাসুদা ভাট্টির মামলাটি আমলে নিয়ে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। গত বছরের ১৬ই অক্টোবর মধ্যরাতে বেসরকারি একাত্তর টেলিভিশনের টক শোতে আলোচকদের একজন ছিলেন মাসুদা ভাট্টি। একপর্যায়ে লাইভে যুক্ত হন আইনজীবী মইনুল হোসেন। এ সময় মইনুলের কাছে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে, আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না? মইনুল হোসেন এ প্রশ্নের জবাব দেয়ার একপর্যায়ে মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন

Leave a Reply

More News from বাংলাদেশ

More News

Developed by: TechLoge

x