• শনিবার, মার্চ ২৮, ২০২০

‘‘বাংলাদেশ ঢুকে হিন্দুদের স্বার্থরক্ষা করুক ভারতীয় সেনাবাহিনী’’

Posted on by

শেখর দুবে, কলকাতা: দেশ ভাগ হবার পর থেকে ধারাবাহিকভাবে কখনও পূর্ব পাকিস্তান ও পরে বাংলাদেশে থেকে অত্যাচারিত হয়ে ভারতে আসছে হিন্দুরা৷ তাদের আশ্রয়ও দেওয়া হচ্ছে, কিন্তু এতে জন বিস্ফোরণ হচ্ছে এপার বাংলায়৷ তাই এবার থেকে বাংলাদেশ যদি হিন্দুদের আশ্রয় দিতে না পারে তাহলে তাদের থাকার জন্য জায়গা ছেড়ে দিক ভারতকে৷ নাহলে ভারতের সেনাবাহিনী বাংলাদেশে ঢুকে হিন্দুদের স্বার্থরক্ষা করুক৷ এমনই দাবি তুললেন কট্টরপন্থী হিন্দুত্ববাদী নেতা তপন ঘোষ৷

যদিও একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র্রের সীমান্ত কী করে অতিক্রম করবে ভারতের সেনা সেই বিষয়টি খুলে বলেননি তপনবাবু ৷
বৃহস্পতিবার মৌলালি যুব কেন্দ্রের বিবেকানন্দ অডিটোরিয়ামে ‘সৃজন’ এবং ‘সিংহবাহিনী’ নামে দুটি সংগঠনের উদ্যোগে একটি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়৷ ‘চার্টার অফ হিন্দু ডিমান্ড’নামে এই সম্মেলনে হিন্দুদের ধর্মীয় এবং অর্থনৈতিক স্বার্থ জড়িয়ে রয়েছে এমন আটটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়৷ এই সভাতেই বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার ব্যাপারে দাবি তুলে তপন ঘোষ বলেন, ‘‘প্রতিবার বাংলাদেশের উগ্র ইসালামিস্টরা অত্যাচার করে হিন্দুদের পশ্চিমবঙ্গে আসতে বাধ্য করে৷ আহা এরা কোথায় যাবে বলে আমরাও ওদের আশ্রয় দিয়ে দিই৷ আর এতেই ওরা পেয়ে বসেছে৷ এরপর বাংলাদেশ থেকে একজন হিন্দুও যদি ভারতে আসে তার বাসস্থানের জন্য প্রয়োজনীয় জায়গা আমরা ছিনিয়ে নেব৷ নাহলে খুলনা এবং হিন্দু অধ্যুষিত পাঁচটি অঞ্চল ভারতকে দিয়ে দিক বাংলাদেশ৷’’

শুধুমাত্র বাংলাদেশী হিন্দু নয়৷ ভারত থেকে গো মাংস রফতানি বন্ধ, ভারতীয় সংবিধানের ৩৫(ক) এবং ৩৭০ ধারার বিলোপ এবং কেন্দ্রীয় সরকারের দ্বারা ধর্মীয় স্বাধীনতা আইনের সংস্কারের মত বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় বিবেকানন্দ অডিটোরিয়ামের অনুষ্ঠানটিতে৷ সম্মেলনটিতে উৎসাহী মানুষের ভিড় ছিল৷ নিজেদের আট দফা দাবির সমর্থনে সম্মেলনে উপস্থিত শ্রোতাদের কাছ থেকে স্বাক্ষর ও সংগ্রহ করছে, ‘চার্টার অফ হিন্দু ডিমান্ড’-এর উদ্যোক্তারা৷

দিল্লি, অসম থেকেও এই সম্মেলনে অংশগ্রহন করেছিলেন অনেকে৷ তবে শুধু কলকাতাতেই নয় দিল্লি, বেঙ্গালুরু সহ দেশের বিভিন্ন জায়গাতে এই রকম হিন্দু সমাবেশের মাধ্যমে নিজেদের দাবির সপক্ষে মতামত তৈরি এবং স্বাক্ষর সংগ্রহ চলছে বলে জানিয়েছেন তপন ঘোষ৷

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x