• রবিবার, অক্টোবর ২৫, ২০২০

ভোলায় মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে জখম

Posted on by

ভোলা প্রতিনিধি
ভোলায় জমিজমা বিরোধ ধরে এক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষরা। শুক্রবার (৫ অক্টোবর) পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়াডের মুসলিমপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাকিম (৮০) ভোলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
আহত মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাকিম বলেন, আমি এস এ ৭১ নম্বর খতিয়ানের ৩০১২/৩০১৩ নম্বর দাগে ১-৩৫ শতাংশ জমি দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছি। মৃত আবদুর রব এর ছেলে আবদুল হাই অসহায় অবস্থায় আমার কাছে এসে আশ্রয় চায়। আমি তাকে আমার জমিতে কিছুদিন থাকার জন্য আশ্রয় দেই। কিন্তু সে এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আবদুল হাই জোরপূর্বক দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছে। আমি তাকে বহুবার অন্যত্র জমি কিনে চলে যেতে বল্লেও সে তা না করে আমার জমি জোর দখল করে রাখে।
বিষয়টি আমি স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানালে তারা শালিসী বৈঠকের মাধ্যমে মিমাংসার চেষ্টা করে। কিন্তু আবদুল হাই গংরা তা প্রত্যাখ্যান করে। পরে আমি জমি জমা নিয়া আবদুল হাই গংদের বিরুদ্ধে ভোলা দায়রা জজ আদালতে মামলা করি। বর্তমানে মামলাটি চলমান আছে।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আবদুল হাই গংরা জোরপূর্বক আমার ভোগদখলীয় জমির গাছপালা ও ফল, ফলাদি নিয়ে যায়। ৫ অক্টোবর (শুক্রবার) আবদুল হাই গংরা আমার ভোগদখলীয় জমি থেকে জোর করে সুপারি পারে। আমি তাদেরকে সুপারি পারার বিষয়টি জিজ্ঞাস করলে আবদুল হাই, তার স্ত্রী নাজমা বেগম দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে।
আমি আত্মচিৎকার করলে আমার মেয়ে বিবি রহিমা আমাকে উদ্ধার করতে আসলে আবদুল হাই গংরা তাকেও বেদম মারধর করে। আমার সাথে থাকা নগদ টাকা ও মেয়ের সাথে থাকা স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে যায় আবদুল হাই ও তার স্ত্রী।
পরে স্থানীয়রা এসে আমাদেরকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
এব্যাপারে আবদুল হাই গংদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্ততি চলছে বলে মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাকিম জানিয়েছেন। ভুক্তভোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. হাকিম আইনিও সহায়তা পাওয়ার জন্য ভোলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
আবদুল হাই গংদের সাথে কথা বলার জন্য ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি এবং তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply

More News from গ্রাম বাংলা

More News

Developed by: TechLoge

x