• শনিবার, অক্টোবর ২৪, ২০২০

ফখরুল-আব্বাস-গয়েশ্বর-মঈনসহ ৭ জ্যেষ্ঠ নেতার আগাম জামিন

Posted on by

নিউজ লাইফ ডেস্কঃ রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় পুলিশের দায়ের করা নাশকতার মামলায় হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পেয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সাত জ্যেষ্ঠ নেতা। পুলিশ প্রতিবেদন জমা না দেওয়া পর‌্যন্ত তাদের জামিন দেওয়া হয়েছে।

আজ বুধবার বেলা ১১ টায় বিচারপতি হাফিজ উদ্দিন ও কাশেফা হোসেনের আদালত তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।জামিন পাওয়ান অন্য নেতারা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস,গয়েশ্বর চন্দ্র রায়,ড.আবদুল মঈন খান,নজরুল ইসলাম খান,চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।

আজ সকাল ১০ টায় স্বশরীরে হাইকোর্টে এসে জামিন আবেদন করেন মবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস,গয়েশ্বর চন্দ্র রায়,ড.আবদুল মঈন খান,নজরুল ইসলাম খান,উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান ও রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।বেলা সোয়া ১১টায় জামিনের শুনানি হয়। বিএনপি নেতাদের পক্ষে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদিন শুনানি করেন। অপরপক্ষে রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করে। শুনানি শেষে দ্বৈত বেঞ্চ বিএনপি নেতাদের আগাম জামিন মঞ্জুর করেন।

পরে বিএনপি নেতাদের আইনজীবী জানান,যে পর্যন্ত পুলিশ মামলার অভিযোগপত্র না দিচ্ছে, তত দিন বিএনপির এই সাত নেতা আগাম জামিনে থাকবেন।এ মামলায় এরই মধ্যে গতকাল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ আগাম জামিন নিয়েছেন। আরো যাঁরা আছেন, তাঁরা পর্যায়ক্রমে আগাম জামিন চাইবেন।

প্রসঙ্গত, পুলিশের কাজে বাধা দেওয়া ও উস্কানিমূলক বক্তব্যে দেওয়ার অভিযোগ গত রোববার রাতে হাতিরঝিল থানায় বিএনপির মহাসচিবসহ দলটির প্রায় সব সিনিয়র নেতাসহ ৫৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে হাতিরঝিল থানা পুলিশ।মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে— রাজধানীর মগবাজার রেলগেট এলাকায় রবিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পুলিশের কাজে বাধা দিয়েছেন, পুলিশকে আক্রমণ করেছেন, যানবাহন ভাঙচুর ও ক্ষতিসাধন করেছেন। জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির জন্য ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে বাঁশের লাঠি, পেট্রোল বোমা, বিস্ফোরিত ককটেলের অংশ, কাচের টুকরা ও ইটের টুকরা উদ্ধার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x