• সোমবার, অক্টোবর ২৬, ২০২০

টেলিফোন করলে আমরা ব্যাক করব: মির্জা আলমগীর

Posted on by

নিউজ লাইফ ডেস্কঃ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে রাজনীতির মাঠে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।নিজ নিজ দাবির পক্ষে অনড় দেশের রাজনৈতিক দলগুলো।কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে নির্বাচন নিয়ে বড় দুই দলের কথার লড়াই ততই বেড়ে চলছে।

নির্বাচন নিয়ে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো দাবি করে আসছে ভোটের আগে সংসদ ভেঙে দেওয়ার। তারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি করেছে। এসব দাবি নিয়ে বিএনপি বারবার সরকারকে আলোচনার প্রস্তাব দিলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তা নাকচ করে দিয়েছে। দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপির সঙ্গে কোনো আলোচনা নয়। কাউকে নির্বাচনে আনা সরকারের দায়িত্ব নয়।

কিন্তু হঠাৎ করেই নিজেদের আগের অবস্থান থেকে সরে এসেছে আওয়ামী লীগ। শুক্রবার দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কোনো সংলাপের আর সম্ভাবনা নেই। তবে অনানুষ্ঠানিকভাবে বিএনপির সঙ্গে আলোচনায় কোনো অসুবিধা নেই। টেলিফোনে কথা বলা যেতে পারে।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ভোটের আর তিন মাস বাকি আছে। এই তিন মাসের মধ্যে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে। এর মধ্যে আনুষ্ঠানিক কোনো সংলাপের প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করি না। কিন্তু তাই বলে সবই কি আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে সীমিত থাকবে? আমরা কি কথাবার্তা বলব না? টেলিফোনে কথা বলতে অসুবিধা কী? আমি বলেছি, বিএনপির সেক্রেটারি জেনারেল সাহেব কখনো আমাকে কোনো বিষয়ে ফোন করেননি। আমি বলিনি যে, আমি সংলাপের জন্য তাদের আহ্বান জানাচ্ছি।

সরকারি দলের শীর্ষ এ নেতার কথাকে ইতিবাচকভাবে দেখছে বিএনপি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা বারবারই আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছি। এখনো বলছি আলোচনায় বসুন। আলোচনার মাধ্যমে একটা সমাধান বের করি। সেটি যেকোনোভাবেই হতে পারে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সমস্যা নেই, টেলিফোনে আলোচনা হতে পারে। আমরা প্রস্তুত আছি। তারা টেলিফোন করলে আমরা ব্যাক করব। আলোচনা করব চলমান রাজনৈতিক সংকট সমাধানের জন্য।’

‘আলোচনা যে কোনোভাবেই হতে পারে।টেলিফোনে হোক বা কোথাও এক সঙ্গে বসে হোক, আমরা রাজি আছি আলোচনার জন্য। দেখা যাক,তারা যদি টেলিফোন করে আমরা তাদের ব্যাক করব। অপেক্ষায় থাকলাম,আমাদের ফোনও খোলা আছে।বিএনপি নেতা বলেন, ‘আমরা একটি নির্বাচনমুখী ও গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। তাই আলোচনার মাধ্যমে সংকট সমাধানে বিশ্বাসী। কারণ,আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান বের করা সম্ভব। ক্ষমতাসীন দল যদি আলোচনা করতে চায় আমরা সবসময় প্রস্তুত আছি। আমাদের দল সবসময় আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে আসছে।এখনো চাই আলোচনার মাধ্যমে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা হোক। জনগণ যাকে ভালো মনে করবে তাকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসাবে। আমরা একবারও বলিনি বিএনপিকে ক্ষমতায় বসাতে হবে।’

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x