• শনিবার, অক্টোবর ২৪, ২০২০

ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনা সরকারেরই বড় বাজেটের চ্যালেঞ্জ নেয়ার সাহস আছে

Posted on by

নিউজ লাইফ ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন,বড় বাজেট,বড় চ্যালঞ্জ।বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার সৎ সাহস শেখ হাসিনা সরকারেরই আছে।এ কারণে বড় বাজেট পেশ করা হয়েছে।প্রস্তাবিত বাজেট নির্বাচনের নয়, জনগণের বাজেট বলেও মন্তব্য করেন তিনি।শুক্রবার (৮ জুন) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পুরাতন মেঘনা ঘাটে ফেরি সার্ভিসের কার্যক্রম পরিদর্শনে এসে তিনি এই মন্তব্য করেন।ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা টোল প্লাজার যানজট নিরসনের বিকল্প হিসেবে আগামী ১২ জুন থেকে যানবাহন পারাপারে ফেরি সার্ভিস চলবে।এসময় সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,সোশ্যাল সেফটি নেটওয়ার্ক কভারেজের আওতায় কয়েক লাখ দরিদ্র মানুষকে আনা হয়েছে।সরকার সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টা মাথায় রেখেছে তা হচ্ছে দরিদ্র মানুষের স্বার্থ। সেখানে কিছু কিছু সমালোচনা আছে।আর বিরোধীদলের মন্তব্য বেপরোয়া,সব কিছুতে তারা নেগেটিভ খোঁজে।বাজটে ভালো হয়েছে বলেই বিরোধীদলের প্রতিক্রিয়া একটু বেশি হবে।সেতুমন্ত্রী আরও বলেন,‘বাজেটে নির্বাচনের কোনও বিষয় নেই।গত বছরও বিরাট বাজেট হয়েছে। তখন তো নির্বাচনের বিষয় ছিল না।বড় বাজেট বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ নিয়েই এই বাজেট পেশ করা হয়েছে।ওবায়দুল কাদের বলেন,বাজেট দেশের উন্নয়ন ও জনগণের স্বার্থে করা হয়।বাজেট করা হয়,দেশের সর্বস্তরের মানুষের কথা মাথায় রেখে।সেভাবেই বাজেট পেশ করা হয়েছে। বাজেট এখনও পাস হয়নি।শেষ পর্যন্ত মানুষের প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করছি ।
পুরাতন মেঘনা ঘাটে ফেরি সার্ভিস চালু হচ্ছে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মেঘনা টোল প্লাজায় যানজট নিরসনের বিকল্প হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আপদকালীন সময়ের জন্য পুরাতন মেঘনা ঘাটে ফেরি সার্ভিস চালু হচ্ছে। ঈদের আগে ১২ জুন থেকে এই ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করবে।তবে মেঘনা গোমতী নদীতে (কুমিল্লার দাউদকান্দি ) ফেরি সার্ভিস চালু ডিফিকাল্ট। নদীতে পলি জমে গেছে। নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়কে বিষয়টি জানিয়েছি।তারা ড্রেজিং তাড়াতাড়ি করে দিলে ঈদুল আজহার সময় গোমতীতে ফেরি সার্ভিস চালু করা যাবে।রাস্তার জন্য কোথাও যানজট হবে না দাবি করে সেতুমন্ত্রী বলেন,রাস্তায় গাড়ি বিকল হলে বা রং সাইডে গাড়ি আসলে যানজট হবে।এটা ঠেকানো খুব কঠিন।আমার সিরিয়াসলি চেষ্টা করছি রং সাইডে গাড়ি চলাচল ঠেকাতে।এর আগে মন্ত্রী মেঘনা ফেরীঘাটের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখেন।এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন সড়ক ও জনপদ বিভাগ এবং বিআইডব্লিউটিএ’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x