• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

মালয়েশিয়ায় মাসজুড়ে রমজান মেলা

Posted on by

নিউজ ডেস্কঃ মালয়েশিয়ান নাগরিকরা ভোজনরসিক।বছরজুড়ে নানা খাবারের আয়োজনের সঙ্গে সঙ্গে রমজানেও থাকে চমক।চাই বাহারি ইফতার।বাহারি স্বাদের ইফতারে এবারও নগরবাসীকে টানছে মারদেকায়।মাসজুড়ে বসে রমজান মেলা।সিয়াম সাধনার মাস মাহে রমজানকে ঘিরে প্রতি বছর থাকে মারদেকা মাঠে বিশেষ আয়োজন।আর এ ইফতারির স্বাদে মন ছুটে মারদেকায়।শুধু মারদেকাই নয় রাজধানী কুয়ালালামপুর থেকে শুরু করে সব প্রদেশেই মাহে রমজানে থাকে বিশেষ আয়োজন এবং সরকারি-বেসরকারিভাবে আয়োজন করা হয় ফ্রি ইফতারের ব্যবস্থা।

ফ্রি ইফতার ধনী-গরিব সবাই একসঙ্গে বসে ইফতার করেন।রমজান মাস এলেই মারদেকায় প্রতি শনি ও রোববার এ মাঠে একসঙ্গে বসে হাজার হাজার মানুষ ইফতার করেন।

স্থানীয়রা ইফতার করেন বিভিন্ন প্রকারের হাতে বানানো পিঠা,হালুয়াজাতীয় নাশতা,সাদা ভাত, বিরিয়ানি,ফলমূলসহ মালয়েশিয়ান খাবার দিয়ে।সঙ্গে থাকে আম,তরমুজ, বাঙ্গি, কলা, পেঁপে, আপেল, আঙুর, কমলাসহ নানারকম মালয়েশিয়ান ফল।এ মাসে বেশ অতিথিপরায়ণ হয়েন ওঠে মালয়েশিয়ানরা।

রমজানে মালেশিয়ায় সরকারি অফিস-আদালতে স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৪টায় ছুটি হয়। ক্রেতাদের জন্য আকর্ষণীয় ছাড় ঘোষণা করে শপিংমলগুলো। রোজার দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই তাই শুরু হয়ে যায় কেনাকাটার ধুম।

মালয়েশিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরা রমজান পালন করেন অনেকটা দেশীয় আমেজে। মুসলিম অধ্যুষিত দেশ হওয়ায় রমজানে শ্রমিকদের নামাজ পড়া ও রোজা রাখার সুযোগ করে দেয়া হয়। মসজিদগুলোতে বিনামূল্যে ইফতারির সুযোগ থাকে। মসজিদে মসজিদে তারাবির নামাজ পড়া হয়।

মালয়েশিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরা রমজান মাসে ইফতার করেন দেশীয় খাবার দিয়েই। বাংলাদেশি মালিকানাধীন রেস্টুরেন্টগুলোতে দেশীয় ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে ইফতারি বানানো হয়। ইফতারিতে খেজুর, জিলাপি, শরবত, জুস, হালিম, ছোলা, মুড়ি, পেয়াজু, বেগুনি, চপ, লাচ্চিসহ নানা প্রকারের খাবার রাখা হয়।

বাংলাদেশিরা যেখানে থাকেন সেখানেই একসঙ্গে ইফতার করেন। তাই বাংলাদেশিদের আয়োজনটা বড় হয়। মালয়েশিয়ানরা অভিভূত হয় বাঙালিদের ইফতারির বিশাল আয়োজন দেখে।

রমজান মাসে প্রতিদিন বিকালে মালয়েশিয়ার মারদেকাসহ প্রায় সব জায়গায় রমজান নামে ইফতারি বেচাকেনার বাজার বসে। বাজার রমজানে বিভিন্ন প্রকারের মালয়েশিয়ান খাবারের সমারহ ঘটে।

রমজানে মুসলমানদের দিনে প্রকাশ্যে খাওয়া মালয়েশিয়ার আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ। প্রতি বছর এ অপরাধে আটক হন অনেকে। এ ছাড়া পুরো রমজানে সরকারি নজরদারিতে জিনিসপত্রের দাম অন্যান্য সময়ের থেকে কম রাখা হয়।

এ মাসে মসজিদগুলোতে প্রতি ওয়াক্ত নামাজে মুসল্লির সংখ্যা বেড়ে যায়। ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েরাও নামাজ আদায় করতে মসজিদে যায়। নামাজের পরে কোরআন তিলাওয়াত করতে পছন্দ করেন মালয়েশিয়ানরা। মসজিদে মসজিদে ইফতারিতে বিনামূল্যে শরবত ও বুবুর বা নরম খিচুড়ির ব্যবস্থা থাকে।

দেশীয় খাবার ছাড়া ভিনদেশি খাবারে ইফতার জমে না বাংলাদেশিদের। সুদূর প্রবাসে থেকেও তাই তৃপ্তি মেটাতে ইফতারে বাঙালি খাবার-ই তাদের প্রথম পছন্দ।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x