• মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নিনা আহমেদ

Posted on by

নিউজ ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রের পেনিসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে দলের প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে ‌‘সাবধানী আশাবাদ’ ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী নিনা আহমেদের প্রচারণা শিবির। মঙ্গলবার লেফটেন্যান্ট গর্ভনর পদে ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী নির্বাচন করবেন ভোটাররা। একই সঙ্গে রিপাবলিকান দলেরও প্রাইমারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে ডেমোক্রাটিক প্রার্থী কে হবেন তার দিকেই সবার আগ্রহ বেশি। কারণ এবার দলটির বর্তমান লেফটেন্যান্ট গভর্নর মাইক স্ট্যাক কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়েছেন। নিনা আহমেদসহ এবার চারজন প্রার্থী ডেমোক্র্যাটিক দলের মনোনয়ন পাওয়ার লড়াইয়ে নেমেছেন।

প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির অন্য প্রতিদ্বন্দ্বিদের মধ্যে রয়েছেন, চেস্টার কান্ট্রি কমিশনার কেথি কোজেন, ব্যাংকার ও ইন্সুরেন্স এজেন্ট রে সোসা এবং ব্রাডোক মেয়র জন ফেটারম্যান।

অনেকেই মনে করেন, ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী চূড়ান্ত করতে শহুরে ভোটাররা বড় ভূমিকা রাখবেন। নিনার প্রচারণা শিবির এসব ভোটারদের প্রভাবিত করতে পারার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী। তার শিবিরের ম্যানেজার ভিন্স রঞ্জিয়ন বলেছেন, তারা জয়ের বিষয়ে আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘আমরা সাবধানী আশাবাদী হওয়া সত্ত্বেও আত্মবিশ্বাসী কারণ আমরা তার পক্ষে প্রচুর ইতিবাচক সমর্থন দেখেছি।’ তবে বর্তমান লেফটেন্যান্ট গভর্নর মাইক স্টাকের এক মুখপাত্র নিনাকে ‘জালিয়াত’ হিসেবে আখ্যা দেন। তিনি বলেন, ‘নিজেকে প্রগতিশীল বলে বেড়ানো নিনা আসলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো আবাসন ব্যবসায়ী।’

প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে মাইক স্টাক হেরে গেলে তিনিই হবেন গত অর্ধশতাব্দীর মধ্যে প্রথম লেফটেন্যান্ট গভর্নর যিনি অঙ্গরাজ্যটির প্রাথমিক নির্বাচনে পুননির্বাচিত হতে ব্যর্থ হবেন। এই প্রাইমারিতে দুই দলের জয়ী প্রার্থীরা আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠিত গভর্নর পদে চূড়ান্ত নির্বাচনে অংশ নেবেন।

মোলিকুলার জীববিজ্ঞানি ও উদ্যোক্তা বাংলাদেশি অভিবাসী নিনা আহমেদ গত বছর পর্যন্ত ফিলাডেলফিয়ার ডেপুটি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা পরিষদে এশিয়ান আমেরিকান ও প্যাসিফিক দ্বীপপুঞ্জ নিয়ে কাজ করেছেন তিনি। নিনা দাবি করে থাকেন, একজন শিশু হিসেবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ প্রত্যক্ষ করার ঘটনা তার ওপর গভীর প্রভাব ফেলেছে।

অনেক দেরিতে অংশ নিলেও নির্বাচনি প্রচারণায় এগিয়ে আছেন নিনা। টেলিভিশন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে নিজের বার্তা ভোটারদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছেন তিনি। ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসননীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনের মুখপাত্র হওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে অংশগ্রহণমূলক আমেরিকা গড়ার কথাও বলেছেন।

স্বামীর মালিকানাধীন রিয়েল এস্টেট ডেভেলপার কোম্পানিতে কাজ করলেও ২০১৬ সালে তা ছেড়ে দিয়েছেন বলে জানিয়েছে নিনার প্রচারণা শিবির।স্টাকের দলের তরফ থেকে নিনাকে জালিয়াত আখ্যা দেওয়ার বিষয়ে ভিন্স রঞ্জিয়ন বলেন, এই মন্তব্যে তাদের হতাশা ফুটে উঠেছে। নির্বাচনে তারা যদি তৃতীয়ও হতে পারে তাহলে সেটা তাদের সৌভাগ্য হবে।

দায়িত্বে থাকা অবস্থায় লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে নির্বাচন করাটা অনেকটা নিরাপদ বলে বিবেচনা করা হয়। তবে ফিলাডেলফিয়ার সাবেক ডেমোক্র্যাটিক সিনেটর মাইক স্টাক তার কর্মচারীদের তোলা অভিযোগের জেরে খানিকটা বেকায়দায় আছেন। বাড়ির কর্মী ও নিরাপত্তা দল লেফেটেন্যান্ট গভর্নর ও তার স্ত্রীর কাছ থেকে খারাপ ব্যবহারের শিকার হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন।

নির্বাচনি প্রচারণা শিবিরের ম্যানেজার রঞ্জিয়ন বলছেন, নিনার কাছাকাছি থাকা প্রতিদ্বন্দ্বি হবেন ফেটারম্যান।প্রাইমারিতে জয়ী হলে প্রথম বাংলাদেশি-আমেরিকান ও প্রথম মুসলমান প্রার্থী হিসেবে সর্বোচ্চ এই লড়াইয়ে অংশ নেওয়া ব্যক্তি হবেন নিনা।

Leave a Reply

More News from কমিউনিটি

More News

Developed by: TechLoge

x