• সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

আবারও ঈদের পর কঠোর কর্মসূচির হুমকি মওদুদ আহমদের

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ চার বছর পর আবারও ঈদের পর কঠোর কর্মসূচির হুমকি এসেছে বিএনপির পক্ষ থেকে। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ দাবি করেছেন, দেশের মানুষ আর শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেখতে চায় না।

সোমবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে এ কথা বলেন বিএনপি নেতা। কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এই কর্মসূচি পালিত হয়।এ সময় রমজানের পরে সরকার পতনে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন মওদুদ। বলেন, ‘নিয়মতান্ত্রিক শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা এত দিন চেষ্টা করেছি। দেশের মানুষ এখন আর শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দেখতে চায় না।’

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রায় প্রতি বছর বিএনপি নেতারা ঈদের পর আন্দোলনের কথা বলে আসছিলেন। তবে ২০১৫ সালে সরকার পতনের আন্দোলন ব্যর্থ হওয়ার পর দলের নেতারা আর ঈদের পর আন্দোলনের কথা বলেননি।মওদুদ বলেন, ‘মানুষ সরকার পরিবর্তন দেখতে চায়। আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে দেশে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, গণতান্ত্রিক অধিকার, মানুষের ভোটের অধিকার এবং ন্যায়বিচার ফিরিয়ে আনা হবে।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড হওয়ার পর থেকে বিএনপি নমনীয় কর্মসূচিতে তার প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে। দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে রায়ের আগের দিন খালেদা জিয়া হঠকারিতা করতে নিষেধ করে গেছেন। তবে মুওদুদ বেশ কয়েক দিন ধরে নানা আলোচনায় কঠোর কর্মসূচির কথা বলে আসছিলেন।

মঙ্গলবার আপিল বিভাগে শুনানিতে খালেদা জিয়ার জামিনের আদেশ আসবে বলেও মনে করেন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আইনমন্ত্রী। বলেন, ‘এ মামলার সমস্ত তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনা এবং খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি আগামীকাল বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্তির আদেশ পাবেন।’

গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড পাওয়া খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন। গত ১২ মার্চ হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ তাকে চার মাসের জামিন দেয়। তবে ওই আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ এবং দুর্নীতি দমন কমিশন আপিল করে আর এর ওপর শুনানি হবে মঙ্গল ও বুধবার।বিএনপির আইনজীবীদের খালেদা জিয়ার বলেছেন, তিনি গুরুতর অসুস্থ এই বিষয়টি আদালতকে জানাতে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদিন বলেন, ‘খালেদা জিয়া সুস্থ অবস্থায় জেলে গিয়েছেন। এখন তিনি জেলে থেকে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। ওই দিন আপিল বিভাগ যদি তাকে জামিন দিতেন তাহলে তিনি আজ অসুস্থ হতেন না।’

“আগামীকাল খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়ে প্রমাণ করে দেবেন আদালত স্বাধীন। অন্যথায় আমরা বুঝব সিনহা বাবুকে (সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা) সরকার যেভাবে ‘বিদায়’ করেছে, আপনারা তাতে ভীত-সন্ত্রস্ত্র।সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘আমরা আশা করি বিচার ব্যবস্থা স্বাধীনভাবে কাজ করবে। না করতে পারলে আইনজীবী-জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে যা যা করা দরকার তাই তাই করবে। এজন্য কোনো রাজনৈতিক নেতা ও বিচারপতিকেও ছাড় দেওয়া হবে না।’

এ সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন স্থগিত হওয়ার বিষয়েও কথা বলেন মওদুদ। বলেন, ‘গাজীপুরে যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, সেই গণজোয়ার দেখে সরকার পিছুটান দিয়েছে।’সাভারের শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ বি এম আজহারুল ইসলাম সুরুজের এক আবেদনের পর রবিবার গাজীপুরে ভোট তিন মাসের জন্য স্থগিতের আদেশে এসেছে।

গত ১০ এপ্রিল একই আবেদন নিয়ে সুরুজ উচ্চ আদালত থেকে ফিরে এসেছেন। সেদিন তার আইনজীবী ছিলেন মওদুদ আহমদ।বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এই আইনজীবী নেতা বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে সারা বাংলাদেশে গণজোয়ার সৃষ্টি হবে। তাতে আওয়ামী লীগ ও তাদের প্রার্থীরা মাঠে দাঁড়িয়ে থাকতে পারবে না। বিএনপির বিজয় সুনিশ্চিত।’

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x