শিমুল বিশ্বাসের ১৭দিনের রিমান্ড শুনানি আবারো পিছিয়েছে

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ রাজধানীর গুলশান ও বংশাল থানার দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী অ্যাডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের রিমান্ড শুনানি পিছিয়ে আগামী ১২ এপ্রিল ধার্য করেছেন আদালত। শুনানি শেষে গুলশান থানার মামলায় ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার এবং বংশাল থানার মামলায় আরেক মহানগর হাকিম বেগম মাহমুদা আক্তার রিমান্ড শুনানির নতুন তারিখ ধার্য করেন।

বুধবার মামলা দুটির রিমান্ড শুনানির জন্য শিমুল বিশ্বাসকে নারায়নগঞ্জ কারাগার থেকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

শিমুল বিশ্বাসকে গুলশান থানার মামলায় ১০দিন এবং বংশাল থানার মামলায় ৭দিন, মোট ১৭দিন রিমান্ড চায় পুলিশ। কিন্তু শিমুল বিশ্বাসকে রিমান্ডে না নেয়ার বিষয়ে হাইকোর্টে রিট বিচারাধীন থাকায় শুনানি পেছানোর আবেদন করেন তার আইনজীবীরা। এর আগে তিন দফায় তাকে শাহাবাগ ও রমনা থানার তিন মামলায় ১৫দিন রিমান্ডে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

শিমুল বিশ্বাসের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার অভিযোগ করেন, তিন দফায় শিমুল বিশ্বাসকে আদালত ১৫দিন রিমান্ড দিলেও পুলিশ আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে ১৯দিন রিমান্ডে রেখে তার ওপর নির্যাতন চালায়। আদালত পুলিশি রিমান্ড মঞ্জুর করলেও ডিবি তাকে নিয়ে যায় মিন্টু রোডে। সেখানে রেখে ১৯দিন তার ওপর মানসিক নির্যাতন চালায়। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ অভিযোগ করে বলেন, শিমুল বিশ্বাসকে আদালত নারায়ণগঞ্জের কারাগারে ডিভিশন প্রদানের নির্দেশ দিলেও তাকে সেখানে একটি নির্জন কক্ষে রাখা হয়েছে। ডিভিশনের ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে না তাকে।

মেজবাহ সাংবাদিকদের বলেন, শিমুল বিশ্বাসের নামে ১১০টির বেশি মামলা রয়েছে। অধিকাংশ মামলা বিশেষ ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। সিএমএম আদালতে তার মামলাগুলোতে জামিনও দেয়া হচ্ছে না আবার জামিন নাকচও করা হচ্ছে না। ঝুলিয়ে রাখা হচ্ছে যেন আমরা উচ্চ আদালতে যেতে না পারি।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণার পর ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ আদালত প্রাঙ্গণ থেকে শিমুল বিশ্বাসকে আটক করে ডিবি পুলিশ।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x