• সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি ক্ষোভের বিস্ফোরণ তৃণমূলের

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়কে সামনে রেখে দলটির নির্বাহী কমিটির বৈঠকে অতীতের আন্দোলনের ব‌্যর্থতার দায়ভার দিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তৃণমূল পর্যায়ের নেতারা। ভবিষ‌্যতের ওই অবস্থা থেকে শিক্ষা নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছ থেকে কার্যকর ভূমিকা প্রত‌্যাশা করেন তারা।

এ ছাড়া খালেদা জিয়ার সাজা হলে দল পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শও এসেছে তাদের কাছ থেকে। এক্ষেত্রে ‘এক-এগারোর’ মতো কোনো পরিস্থিতিতে দলে ঐক্যের ওপর জোর দিয়েছেন তারা।

শনিবার ঢাকার লা মেরিডিয়ান হোটেলে দিনব‌্যাপী বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বক্তব‌্য রাখতে গিয়ে জেলা পর্যায়ের নেতারা এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে তৃণমূলের ৪২ জন নেতা বক্তব্য দেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাহী কমিটির বৈঠকে জেলার যেসব নেতারা বক্তব‌্য রেখেছেন তারা প্রায় সবাই অতীতের সরকারবিরোধী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতাদের ভূমিকার কঠোর সমালোচনা করেন। দলের আজকের পরিস্থিতির জন‌্য তাদের দায়ী করে তৃণমূলের ওইসব নেতারা বলেন, আন্দোলনের ক্ষেত্রে ঢাকায় ভালো ভূমিকা রাখতে পারলে বিএনপিকে আজকের সংকটে পড়তে হতো না। মাঠ পর্যায়ের এসব নেতারা বলেন, সারা দেশ ঢাকা থেকে অচল হয়ে গেলেও রাজধানীতে ছিটেফোটাও আন্দোলন হয়নি। ভবিষ‌্যতে নেতাদের ঢাকার রাজপথে কার্যকর ভূমিকা দেখতে চান বলে জানান তারা।

দলের ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সম্পাদক কুমিল্লার নেতা হাজি ইয়াসিন আলী জানান, ৮ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নিজ নিজ এলাকায় ১০ হাজার মানুষ নিয়ে রাজপথে অবস্থানের প্রস্তাব দিয়েছেন।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বরিশালের নেতা মজিবুর রহমান সারোয়ার বলেন, ‘যেনতেনভাবে মিথ্যা মামলায়’ সাজা দিলে দলের নেতা-কর্মীরা চুপ করে বসে থাকতে পারে না। সেক্ষেত্রে ‘শক্ত কর্মসূচি’ দিতে হবে; আর প্রস্তুতি নিতে হবে সেভাবেই।

বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান বলেন, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে দল চালানোর দায়িত্ব দেওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে।

নোয়াখালী জেলা বিএনপির সভাপতি এ জেড এম গোলাম হায়দার বলেন, ২৪ ঘণ্টার নোটিশে আমরা সারা দেশ অচল করে দিয়েছি। আমরা সারা দেশ অচল করেছি, ঢাকা পারেনি। এবার ঢাকার ভূমিকা দেখতে চাই। ঢাকা কী করবে জানি না।

দলের শিশুবিষয়ক সম্পাদক টাঙ্গাইলের বিএনপির নেতা আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী বলেন, ‘৮ তারিখ কী রায় হবে সেটা সরকার জানে। তবে আমরা জনগণকে নিয়ে রাজপথে থাকব। আমাদের নেত্রী জেলে গেলে আমরা বাইরে থাকব না, আমরাও জেলে যাব।’

দলের সাংগঠনিক সম্পাদক লালমনিরহাটের নেতা আসাদুল হাবিব দুলু বলেন, ‘আমরা মনে করি, ৮ তারিখে যদি কোনো ষড়যন্ত্রমূলক রায় দেওয়া হয়, তাহলে সবাই রাজপথে নামব যাতে কোনো ষড়যন্ত্র কার্যকর করতে না পারে।’

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x