• সোমবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

টাইগারদের জয়ের লক্ষ্য ২২২

Posted on by

স্পোর্টস ডেস্কঃ ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিততে বাংলাদেশের দরকার ২২২ রান। শনিবারের ফাইনালে দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্বাগতিকরা খুব বেশি দূর যেতে দেয়নি শ্রীলঙ্কাকে। নির্ধারিত ৫০ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে সফরকারীরা করতে পেরেছে ২২১ রান।

ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই থিসারা পেরেরাকে সাজঘরে ফেরালেন রুবেল হোসেন। মাত্র ২ রান করে আউট হয়েছেন পেরেরা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঝড়ো ইনিংস খেলে শ্রীলঙ্কার ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিলেন পেরেরা। বাংলাদেশের বিপক্ষে আগের ম্যাচে অবশ্য ব্যাট হাতে নামতে হয়নি তাকে। ত্রিদেশীয় সিরিজে দারুণ সময় কাটানো এই অলরাউন্ডারের কাছ থেকে ব্যাটিংয়ে অনেক প্রত্যাশা ছিল লঙ্কানদের। যদিও হতাশই করলেন পেরেরা। ১০ বলে মাত্র ২ রান করে আউট হয়ে গেছেন রুবেলের বলে। তামিম ইকবালের হাতে ধরা পড়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন তিনি।

রুবেলের আঘাতের আগে নতুন এক কীর্তি গড়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। উপুল থারাঙ্গাকে আউট করে হয়েছেন বাংলাদেশের দ্রুততম ৫০ উইকেট শিকারি বোলার। হাফসেঞ্চুরি করা শ্রীলঙ্কান ওপেনারকে (৯৯ বলে ৫৬) বোল্ড করে ফেরান এই পেসার। ওয়ানডেতে দ্রুততম ৫০ উইকেট শিকারের তালিকায় আবার পাকিস্তানের কিংবদন্তি পেসার ওয়াকার ইউনুসকে স্পর্শ করেছেন মোস্তাফিজ। ওয়াকারের সমান ২৭ ম্যাচে উইকেটের ‘হাফসেঞ্চুরি’ পূরণ করে হয়েছেন বিশ্বের ষষ্ঠ দ্রুততম ৫০ উইকেট শিকারি বোলার।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কার শুরুটা ভালো হয়নি। শুরুতেই তারা হারায় ওপেনার গুনাথিলাকার উইকেট। মেহেদী হাসান মিরাজের বলে তামিম ইকবালের হাতে ধরা পড়েন তিনি ৬ রানে। তবে শুরুর ওই ধাক্কা কাটিয়ে উল্টো বাংলাদেশের ওপর ঝড় তোলেন কুশল মেন্ডিস। চার-ছক্কায় বল করছিলেন সীমানা পার। তার ঝড় থামিয়েছেন মাশরাফি। মাহমুদউল্লাহর তালুবন্দী হওয়ার আগে ৯ বলে খেলে যান কুশল ঝড়ো ২৮ রানের ইনিংস, যাতে ছিল দুটি চার ও তিনটি ছক্কার মার।

কুশলের আউটের পর ডিকবেলাকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ান থারাঙ্গা। বাংলাদেশের বোলারদের পরীক্ষা নিয়ে বাড়িয়ে নেন তারা দলের রান। এই জুটিতে শ্রীলঙ্কা পেরোয় ১০০ রান। দলের রানের সঙ্গে ব্যক্তিগত সংগ্রহে ফিফটির কাছাকাছি চলে গিয়েছিলেন ডিকবেলা।

যদিও হাফসেঞ্চুরির উৎসব করতে দেননি তাকে সাইফউদ্দিন। এই পেসারের বলটা বুঝতেই পারেননি, হঠাৎ লাফিয়ে ওঠা বল তার ব্যাটের উপরের দিকে লেগে ভাসতে থাকে হাওয়ায়। সহজ ক্যাচ তালুবন্দী করতে কোনও সমস্যাই হয়নি সাব্বির রহমানের। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ডিকবেলা ৫৭ বলে খেলে যান ৪২ রানের ইনিংস।

ফাইনালে বাংলাদেশের একাদশে পরিবর্তন তিনটি। জায়গা হারিয়েছেন এনামুল হক বিজয়। তার জায়গায় সুযোগ পেয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন। বাজে সময় কাটানো নাসির হোসেনও কাটা পড়েছেন একাদশ থেকে। এই অলরাউন্ডারকে বাদ দিয়ে অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজকে প্রথমবারের মতো সুযোগ দেওয়া হয়েছে এই টুর্নামেন্টে। এক ম্যাচ খেলেই বাদ পড়েছেন আবুল হাসান। তার বদলে ফিরেছেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই প্রথম হারের মুখ দেখে বাংলাদেশ। মাত্র ৮২ রানে অলআউট হয়ে বড় এক ধাক্কা খেয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজারা। ফাইনাল মঞ্চে সেই প্রতিশোধ পর্ব সেরে শিরোপা উদযাপন করতে চায় বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x