• শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

যুক্তরাজ্য বিএনপির কাউন্সিল স্থগিত: বিশেষ সভায় উত্তেজনা

Posted on by

ইউএনএন বিডি নিউজঃ যুক্তরাজ্য বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আজ মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) বিকালে। কিন্তু ত্রুটিপূর্ণ কাউন্সিলর তালিকা প্রণয়ন ও সেখানকার শীর্ষ বিএনপি নেতাদের ব্যক্তিগত কেলেঙ্কারীসহ বিভিন্ন অভিযোগে কাউন্সিল নিয়ে বিরোধিতা ও বিতর্ক তৈরি হলে কাউন্সিলের আগের রাতে তা স্থগিতের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোরে (যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় সোমবার রাত) চলমান এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সোমবার রাতে যুক্তরাজ্য বিএনপির অফিসে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ সভায় এ ঘোষণা দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান। এসময় বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ। বিশেষ সভায় বিএনপির নেতাদের বক্তব্য দেওয়া ও লাইভ ফেইসবুকে সম্প্রচারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে শীর্ষ নেতাদের হস্তক্ষেপে সভা আবারো শুরু হয়। একাদিক নেতার ফেইসবুকে লাইভ চলে দলের অভ্যন্তরীন অন্ত:কোন্দলের চিত্র।

এই পর্যায়ে সভার নিয়ন্ত্রন নেন দলের আন্তর্জাতিক সম্পাদক মাহিদুর রহমান। তিনি বেশ কয়েকজন নেতার বক্তব্য শুনেন এবং আগামী কাল মঙ্গলবার যুক্তরাজ্য বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সাথে বসে কাউন্সিলের তারিখ ও কাউন্সিলের কারা ভোটার হবেন এবং কোন পক্রিয়ায় কাউন্সিল হবে তা নির্ধারন করা হবে।

এদিকে সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১৯ জুলাই এম এ মালিককে সভাপতি ও কয়ছর এম আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। প্রায় ছয় মাস আগে কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর আসন্ন কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে যেমন ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছিল, তেমনি প্রার্থীদের মধ্যে সৃষ্টি হয় সন্দেহ আর নানান প্রশ্নের।

কাউন্সিলের জোনাল কমিটির সংখ্যা নিয়ে মতভেদ সৃষ্টি হয়। গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকালে সংগঠনের সভাপতি এম এ মালিক বলছেন, জোনাল কমিটি ৬০টি কিন্তু সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ বলেন এর সংখ্যা ৪৫টি। তবে কিছু প্রস্তাবিত কমিটি রয়েছে। নির্বাচনের প্রক্রিয়া সম্পর্কে বলতে গিয়ে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক উভয়ই নিশ্চিত করেন বিগত দুই কাউন্সিলের মত এবারো বিভিন্ন জোনাল কমিটির নেতৃবৃন্দ তাদের মতামতের ভিত্তিতেই নতুন কমিটি উপহার দিবেন। এসময় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। তবে সোমবার জরুরী এক সভার মাধ্যমে মঙ্গলবারের কাউন্সিল ঘোষণা করেন নেতৃবৃন্দ।

কাউন্সিলর নির্বাচন প্রক্রিয়া ও প্রার্থিতার প্রক্রিয়া নিয়ে স্বেচ্ছাচারিতা ছাড়াও যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কিছু অনৈতিক কাজ ও বক্তব্যের ভিডিও সম্প্রতি প্রকাশ হয়ে পড়লে তা সমালোচনার জন্ম দেয়। অভিযোগ রয়েছে, ২ জানুয়ারি কাউন্সিলের ঘোষণা দেওয়া হলেও সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়া কেউই জানতেন না এর ভেন্যু কোথায়। এ পরিস্থিতিতে দলের একাধিক গ্রুপ মঙ্গলবারের কাউন্সিল ঠেকানোর ঘোষণা দিয়ে মাঠে নামে। এতে যুক্তরাজ্যজুড়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছিল।
উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মঙ্গলবারের কাউন্সিল স্থগিতের ঘোষণা এলো কাউন্সিলের আগের রাতেই।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x