আজকে

  • ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং
  • ৮ই শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

গোলাপগঞ্জের বুধবারীবাজার ইউ’পি চেয়ারম্যান কামালের ব্যাপক উন্নয়ন

Published: বৃহস্পতিবার, জুন ৭, ২০১৮ ৬:১১ অপরাহ্ণ    |     Modified: সোমবার, জুন ১১, ২০১৮ ১:০৬ অপরাহ্ণ
 

ইউকেবিডি টাইমসডেস্ক:সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জে উপজেলার বুধবারীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করে যাচ্ছেন।গোলাপগঞ্জ উপজেলার প্রবাসী অধ্যুষিত ইউনিয়ন হচ্ছে ৫ নং বুধবারীবাজার ইউনিয়ন।
ঐতিহ্যবাহী এই ইউনিয়ন পরিষদ প্রতিষ্ঠার পর থেকে বুধবারীবাজারের সম্মুখে একটি কুড়ে ঘরের মত একটি ঘরকে পরিষদ কার্যালয় হিসেবে তৈরী করা হয়েছে।  এই কার্যালয়েই প্রথম থেকে চলছিল পরিষদের কার্যক্রম। ইউনিয়ন পরিষদ প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই পরিষদের দ্বায়িত্বে নির্বাচিত হয়ে এসেছিলেন অনেক চেয়ারম্যানই।


অতীতে অনেক আশা জেগেছিল এই পরিষদের একটি নতুন স্বপ্নের ভবন হবে বলে। কিন্তু কারো দ্বারাই তা আর বাস্তবায়ন করা সম্ভব বহয়নি।

কিন্তু কালের পরিবর্তনে ইতিহাস সৃষ্টি করে  ২০১৬ সালের ৭ ই মে ইউ’পি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী  হন আজকের  সফল চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল। নির্বাচিত হয়ে তিনি অক্লান্তক পরিশ্রম ও প্রচেষ্টা করে  ইউনিয়নবাসীকে আজকের এই দৃশ্যমান ইউনিয়ন কমপ্লেক্স উপহার দেন। দৃষ্টিনন্দন নতুন ভবনটি করে ইতিহাস সৃষ্টি করেন।
এই ভবন বাস্তবায়নের দ্বারা প্রকৃতভাবে ইউনিয়নবাসীর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে। দীর্ঘদিনের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে বুধবারীবাজার ইউনিয়নবাসীর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করলেন চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল।
তারই সাথে নতুন ভবনের পাশে থাকা পুকুরটিও ভরাটের কাজ ইতিমধ্যে শেষ করা হয়েছে।

শুধু এই ভবনটিই নয়, ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডের প্রতিটি ক্ষেত্রে তিনি দৃষ্টিনন্দন উন্নয়নের ছোয়া লাগিয়েছেন।সেই সাথে জনতার সেবক হিসাবে কাজ করে যাচ্ছেন।  অসহায়দের পাশে থেকে গরিব-দু:খী ও মেহনতি মানুষেকে প্রতি মাসেই দেয়া হচ্ছে পরিষদের পক্ষ থেকে চাল ডাল সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় সামগ্রী।  যুব সমাজকে খেলাধুলা ও সুন্দর সামাজিকতায় সব সময় সহযোগীতা করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি ন্যায় পরায়ণতা ও সঠিক নেত্রীত্বের সাথে ইউনিয়নবাসীর জন্য দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল নির্বাচিত হওয়ার পূর্বে অনেকেই ধারণা করে বলেছিলেন, তিনি চেয়ারম্যান  নির্বাচিত হলে নতুন কমপ্লেক্স  যথা স্থানে নির্মাণ  না করে  বরং কমপ্লেক্সটি অন্য কোথাও নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবেন। যারা এরকম বলেছিলেন  তাদের মন মানসিকতা, ধ্যান ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়েছে।

বর্তমান পরিষদের প্রতিটি ক্ষেত্রে  যে দৃষ্টিনন্দন উন্নয়ন হয়েছে তা পূর্বের কারোও পক্ষে সম্ভব  হয়নি। বর্তমান চেয়ারম্যান কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী।বর্তমান পরিষদের ক্ষমতার মেয়াদ এখনো ২ বছর পূর্ণ হয়নি।এরই মধ্যে ব্যাপক উন্নয়ন আর সাফল্য।

এব্যাপারে চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল বলেন,মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও সহযোগীতায়  আমার মেয়াদকালের প্রথম দুই বছরেই ব্যাপক উন্নয়ন করেছি।পরিষদের ক্ষমতার মেয়াদ এখনো ২ বছর পূর্ণ হয়নি।এরই মধ্যে ব্যাপক উন্নয়ন আর সাফল্য দেখেছেন ইউনিয়ন বাসী।

পরবর্তী  তিন বছরে  আরো ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড দৃশ্যমান হবে। অসম্পূর্ণ কাজ সফল ভাবে সুসম্পন্ন করা হবে। আমি সবার দোয়া,সহযোগীতা ও ভালবাসা চাই।

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার