আজকে

  • ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং
  • ৭ই সফর, ১৪৪০ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

মাহমুদউল্লাহর ছয়ে মধুর জয়,ফাইনালে বাংলাদেশ

Published: শুক্রবার, মার্চ ১৬, ২০১৮ ৯:৪৬ অপরাহ্ণ    |     Modified: শনিবার, মার্চ ১৭, ২০১৮ ৬:১০ পূর্বাহ্ণ
 

স্পোর্টস ডেস্কঃশেষ দুই ওভারে দরকার ছিল ২৩ রান। হাতে চার উইকেট। ১৯তম ওভারের শেষ বলে মেহেদী হাসান মিরাজের রানআউটে সমীকরণ দাঁড়ায় শেষ ওভারে বাংলাদেশের করতে হবে ১২ রান। স্ট্রাইকে মোস্তাফিজুর রহমান। উদানার প্রথম বল ডট। দ্বিতীয় বলে রানআউট মোস্তাফিজ। তৃতীয় বলে স্ট্রাইকে এসেই টানা তিন বলে চার, দুই ও ছক্কায় ১২ রানের সমীকরণ মিলিয়ে ত্রিদেশীয় টি ২০ সিরিজ নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশকে দুর্দান্ত এক জয় এনে দিলেন মাহমুদউল্লাহ। ১৮ বলে অপরাজিত ৪৩ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে বাংলাদেশকে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে তুললেন মাহমুদউল্লাহ। সাত উইকেটে শ্রীলংকার করা ১৫৯ রানের জবাবে এক বল বাকি থাকতেই দুই উইকেটের রুদ্ধশ্বাস জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। জয়ের ভিতটা গড়ে দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল (৫০) ও মুশফিকুর রহিম (২৮)। আগামীকাল কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আঙুলের চোট কাটিয়ে আগেরদিন নাটকীয়ভাবে শ্রীলংকায় দলের সঙ্গে যোগ দেয়ার পর কাল অধিনায়ক হিসেবেই মাঠে ফিরলেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের প্রত্যাবর্তনে উজ্জীবিত বাংলাদেশ শুরুটা করেছিল স্বপ্নের মতো। অলিখিত সেমিফাইনালে রূপ নেয়া নিদাহাস ট্রফির প্রথমিক পর্বের শেষ ম্যাচে শুক্রবার টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা স্বাগতিক শ্রীলংকা ৪১ রানে হারিয়েছিল পাঁচ উইকেট। তারপরও লংকানদের অল্পরানে বেঁধে রাখা সম্ভব হয়নি। কুশল পেরেরা (৬১) ও থিসারা পেরেরার (৫৮) দারুণ দুটি ফিফটিতে শুরুর ধাক্কা সামলে শেষ পর্যন্ত সাত উইকেটে ১৫৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে শ্রীলংকা। ফেরার ম্যাচে দুই ওভারে নয় রান দিয়ে এক উইকেট নেন সাকিব। এ ছাড়া মোস্তাফিজুর দুটি এবং রুবেল, মিরাজ এবং সৌম্য একটি করে উইকেট নেন। চোট কাটিয়ে ফেরার ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে নেমে সাহসী নেতার মতো আক্রমণের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন সাকিব। প্রথম ওভারে দেন মাত্র তিন রান। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে রুবেল হোসেন ১২ রান দেয়ার পর নিজের দ্বিতীয় ওভারে দলকে প্রথম সাফল্য এনে দেন সাকিব। তাকে উড়িয়ে মারার চেষ্টায় লংঅনে সাব্বির রহমানের দারুণ ক্যাচে পরিণত হন ধানুশকা গুনাথিলাকা। সাকিবের আঘাতে ভাঙে শ্রীলংকার ১৫ রানের উদ্বোধনী জুটি। পরের ওভারেই আরেক ওপেনার কুশল মেন্ডিসকে ফেরান পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। তাকে পুল করতে মিডউইকেটে সৌম্য সরকারকে ক্যাচ দেন সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ানো মেন্ডিস। মোস্তাফিজের পরের ওভারে দুই উইকেট পায় বাংলাদেশ। প্রথমে রানআউট হয়ে ফেরেন উপুল থারাঙ্গা। ওই ওভারের চতুর্থ বলে দাসুন শানাকাকে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ দিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন মোস্তাফিজ। তার অফ-কাটার বুঝতে না পেরে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন শানাকা। পাওয়ার প্লের প্রথম ছয় ওভারে চার উইকেট হারিয়ে মাত্র ৩৫ রান তুলতে পারে শ্রীলংকা। নবম ওভারে জীবন মেন্ডিসকে আউট করে শ্রীলংকাকে আরও চাপে ফেলে দেন মেহেদী হাসান মিরাজ। মাত্র ৪১ রানে পাঁচ উইকেট হারানো শ্রীলংকা এরপর ঘুরে দাঁড়ায় দুই পেরেরার ব্যাটে। ষষ্ঠ উইকেটে ৬১ বলে ৯৭ রানের ম্যারাথন জুটি গড়েন কুশল পেরেরা ও থিসারা পেরেরা। ইনিংসের ১৯তম ওভারে কুশল পেরেরাকে ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন সৌম্য সরকার। ৪০ বলে সাত চার ও এক ছক্কায় ৬১ রান করেন কুশল পেরেরা। শ্রীলংকাকে লড়াই করার মতো পুঁজি এনে দিতে থিসারার অবদানও কম নয়। শেষ ওভারে রুবেলের শিকার হয়ে ফেরার আগে সমান তিনটি করে চার-ছক্কায় ৩৭ বলে ৫৮ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেন এই অলরাউন্ডার।

(যুগান্তর)

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার