আজকে

  • ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২০শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং
  • ৯ই সফর, ১৪৪০ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

১৩জন বিচারপতির উপস্থিতিতে ঢাকায় ল এসোসিয়েশন ইউকের সভা

Published: বৃহস্পতিবার, মার্চ ৮, ২০১৮ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ    |     Modified: বৃহস্পতিবার, মার্চ ৮, ২০১৮ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ
 

ঢাকা প্রতিনিধি : বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন (বি এল এ) ইউকের ১০ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে গত রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর দ্যা প্যান প্যাসিফিক সোনাগাঁও হোটেলে এক ‘গেট টুগেদার’ ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সভায় সুপ্রীম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট আপিল বিভাগের ১৩ জন সম্মানিত বিচারপতি উপস্থিত ছিলেন।

 বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম সরকারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শিবলী সাদিকের সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট আপিল বিভাগের ১৩ জন মাহামান্য বিচারপতিদের সরাসরি সম্মাননা প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সম্মাননাপ্রাপ্ত বিচারপতিগণ হলেন মির্জা হোসেইন হায়দার, মো: মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী, এ. কে. এম. আব্দুল হাকিম, এ. এন. এম. বসির উল্লাহ, কাজী রেজা-উল হক, মোস্তফা জামান ইসলাম, মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকার, এ. কে. এম. সাহিদুল হক, মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, আশীষ রঞ্জন দাস, আমির হোসেন, মো: ইকবাল কবির ও মো: সোহরাওয়ারদী।

সভায় বিচারপতিগণ প্রত্যেকে তাদের পরিচয় ও সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। বক্তব্যে তারা বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রথম ব্যাচের ছাত্র; আপিল বিভাগের বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার তার বক্তব্যে বলেন , ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের ইতিহাসে এই প্রথম বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের উদ্যোগে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপীল ও হাইকোর্ট বিভাগে সাবেক ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে কর্মরত বিচারপতিদের নিয়ে আজ বৃহৎ আকারে গেট টুগেদার করেছে। যা বাংলাদেশের অন্যকোন সংগঠন করতে পারেনি। বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার এই বিশেষ কৃতিত্বের জন্য বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম সরকার ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শিবলী সাদিককে ধন্যবাদ জানান।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদ সদস্য হুসনে আরা বাবলী ও ফজিলাতুনন্নেসা বাপ্পী।

গেট টুগেদার’ ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. নাঈমা হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের শিক্ষক ড. বোরহান উদ্দিন খান, ড. সুমাইয়া খায়ের, ড. শাহনাজ হুদা ও ড. আসিফ নজরুল। উপস্থিত ছিলেন, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের মেম্বার ড. সেলিম মাহমুদ। আরো উপস্থিত ছিলেন, তথ্য কমিশনার মর্তুজা আহমেদ, তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ আইন সমিতির সাবেক সভাপতি বৃন্দ, আইন সমিতির বর্তমান ও সাবেক সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ প্রমুখ।

বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম সরকার তার বক্তব্যে বলেন, ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ঢাবির আইন বিভাগের সাবেক ছাত্রদের মধ্যে এমনকি তাদের পরিবারগুলোর মধ্যেও আমরা মেলবন্ধন সৃষ্টি করতে পেরেছি। আমরা চাই বাংলাদেশেও সেই অপূর্ব বন্ধন গড়ে উঠুক।

বাংলাদেশ ল’এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শিবলী সাদিক বলেন, অনেক ব্যাস্ততা ও মূল্যবান সময়ের মধ্যেও আজ সন্মানিত অতিথিবৃন্দ বাংলাদেশ ল’ এ্যাসোসিয়েশন ইউকের ১০ম বর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন। আপনাদের এ উপস্থিতি, উচ্ছ্বাস ও উৎসাহ বাংলাদেশ ‘ল এসোসিয়েশন ইউকে কে আরো সমৃদ্ধ ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে দিয়েছে। তাই আজকের এ দিন স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার