আজকে

  • ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং
  • ৮ই শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

গ্রামীণফোনকে ৫ কোটি টাকা জরিমানা

Published: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮ ৫:৫৬ অপরাহ্ণ    |     Modified: বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮ ৫:৫৬ অপরাহ্ণ
 

অনুমোদন ছাড়া সীমান্তবর্তী এলাকায় টাওয়ার স্থাপনের মাধ্যমে রাজস্ব আয়ের দায়ে গ্রামীণফোনকে ৫ কোটি ১৭ লাখ ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত কমিশনের ২০৭তম সভায় গ্রামীণফোনকে জরিমানার সিদ্ধান্ত হয় বলে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ জানিয়েছেন।

বিটিআরসি স্পেকট্রাম বিভাগের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, ‘২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া গ্রামীণফোন ১৭টি (আটটি নিজস্ব সাইটে অবস্থিত, নয়টি বিটিএস অন্য অপারেটরের শেয়ারড সাইটে স্থাপনকৃত) সীমান্তবর্তী বিটিএস (বেস ট্রানসিভার স্টেশন) বা টাওয়ার বসায়।’

এর মাধ্যমে অন্য অপারেটরের তুলনায় প্রায় ৫ কোটি ১৭ লাখ ১৪ হাজার টাকা অননুমোদিতভাবে অতিরিক্ত রাজস্ব আয় করেছে, যা প্রশাসনিক জরিমানা হিসেবে আরোপ করা হয়েছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ‘সভায় গ্রামীণফোণকে বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া ২০১৩ সাল পর্যন্ত স্থাপিত বর্ডার বিটিএসের বিষয়ে ভূতাপেক্ষ অনুমোদন দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে গ্রামীণফোনকে সীমান্তবর্তী এলাকায় স্থাপিত বিটিএসগুলোর প্রযোজ্য সমস্ত নিয়মনীতি অনুসরণের মাধ্যমে আবেদন করার জন্য নির্দেশনা দেবে বিটিআরসি।

বিটিআরসির অনুমোদন ছাড়া এবং বিটিআরসিকে না জানিয়ে অনুমোদিত স্থান অথবা মৌজার নাম পরিবর্তন করে পাশ্বর্তী স্থান বা মৌজায় স্থাপিত বর্ডার বিটিএসগুলোর মধ্যে যে সব বিটিএসের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর ছাড়পত্র বা মতামত গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা আছে সেসব বিটিএসের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তা সংস্থার কাছে গ্রামীণফোন চিঠি পাঠানোর পর তাদের মতামতের ভিত্তিতে কমিশন পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে বলেও সভায় সিদ্ধান্ত হয়।

এবিষয়ে গ্রামীণফোন এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘বিটিআরসির এ ধরনের সিদ্ধান্তের খবর আমাদের জানা নেই। তাই এবিষয়ে এই মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করব না।’

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার