আজকে

  • ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৫শে মে, ২০১৮ ইং
  • ৯ই রমযান, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

বাঁচল যশোর রোডের সবুজ ঐতিহ্য

Published: বুধবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৮ ৬:২৫ পূর্বাহ্ণ    |     Modified: বুধবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৮ ৬:২৫ পূর্বাহ্ণ
 

উন্নয়নের নামে সবুজ ধংস নয়। প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের অঙ্গরাজ্য পশ্চিমবঙ্গে যেমন সড়ক সম্প্রসারণ প্রকল্প চলছে, সেইরকমই পদক্ষেপ নিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। ফলে কাটা পড়ছে না বিখ্যাত যশোর রোডের দুপাশে থাকা শতবর্ষ প্রাচীন তিন হাজার গাছ।

সড়কটি চার লেনে সম্প্রসারণের জন্য রেইনট্রি, শিশু ও কড়ইসহ বিভিন্ন প্রজাতির তিন হাজার গাছ কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এই খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রতিবাদ জানিয়েছিল পরিবেশবাদী ও সাধারণ মানুষ।

গাছগুলো কাটলে তা পরিবেশের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এই আশঙ্কায় পরে সরকার আগের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। সম্প্রতি এ-সংক্রান্ত চিঠি আসে যশোরে। তবে আপাতত ২৭ কোটি টাকা ব্যয়ে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কটি মেরামত ও মজবুত করা হবে। এ জন্য উন্মুক্ত দরপত্র আহ্বান করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

সম্প্রতি যশোর-বেনাপোল মহাসড়ক সম্প্রসারণের লক্ষ্যে হাজার খানেক গাছ কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়। তারই পরেই শুরু হয় প্রতিবাদ। আপাতত সরকার জানিয়েছে, সবুজ বাঁচিয়ে রেখেই যশোর রোড সম্প্রসারণ প্রক্রিয়া চালু থাকবে। আগামী দু সপ্তাহের মধ্যে সংশোধিত এই প্রকল্প তৈরির কাজ শুরু করবে সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক বিভাগ।

ঐতিহ্যের ধারক যশোর রোড:

১৮৪০ সালে এই এই সড়কের নির্মাণ কাজ শুরু করেন যশোরের তখনকার জমিদার কালী পোদ্দার। ১৮৪৪ সালে সড়ক নির্মাণ শেষ হয়। এরপর তিনি রাস্তার দুধারে সারি সারি গাছ লাগান ছায়ার জন্য। বাংলাদেশ অংশে তার লাগানো প্রায় ১৮০ বছর বয়সী গাছ আছে কয়েকটি তারও ২৫০ বছর প্রাচীন।

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার