আজকে

  • ৯ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ২৩শে জুন, ২০১৮ ইং
  • ৭ই শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

বৃটিশ রাজনীতিতে ব্ল্যাক এথনিক মাইনরিটির ভূমিকা প্রশংসনীয়: হাউজ অফ কমন্স স্পীকার জন বারকো

Published: রবিবার, জানুয়ারি ২১, ২০১৮ ১:২০ পূর্বাহ্ণ    |     Modified: সোমবার, জানুয়ারি ২২, ২০১৮ ১:০১ পূর্বাহ্ণ
 

ইউকেবিডি টাইমস ডেস্কঃ

অপারেশন ব্ল্যাক ভোট সম্ভাবনাময় বিএমই বা ব্ল্যাক মাইনরিটি অফ এথনিক কমিউনিটির মানুষদের নিয়ে কাজ করে। গত বিশ বছর ধরে দেশের বিভিন্ন শহরের তরুণদের বৃটিশ রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করার কাজ করে আসছে সংগঠনটি। এ বছর আবারো পার্লামেন্টারী শ্যাডয়িং স্কীম নামে একটি প্রজেক্টের সূচনা করে সংগঠনটি। এতে প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন হাউজ কমন্সের স্পীকার রাইট অনারেবল জন বারকো এমপি। তিনি বৃটিশ রাজনীতিতে ব্ল্যাক এথনিক মাইনরিটির ভূমিকার প্রশংসা করেন। তিনি আরো বলেন হাউজ অফ পার্লামেন্টে আরো বেশী বিএমই সংসদ সদস্যের প্রতিনিধিত্ব প্রয়োজন। আর অবিভির পার্লামেন্টারী শ্যাডয়িং স্কীম এ সংখ্যা বৃদ্বিতে ভূমিকা রাখছে বলেও তিনি গুরুতারোপ করেন।


প্রতিষ্ঠানের ডাইরেক্টর সায়মন ওয়ালী তার বক্তব্যে বলেন দিন দিন মাইনরিটি কমিউনিটির ভোট যে কোন নির্দিষ্ঠ ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছে। স্থানীয় নির্বাচন থেকে জাতীয় নির্বাচন সবগুলোতেই এথনিক কমিউনিটির ভোট ব্যাংক অন্যতম একটি ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছে। আমাদের মেধাবী ও তুখোর রাজনীতিবীদদের তুলে ধরার এখনই উপযুক্ত সময়। আর তাই অবিভি দুই দশক ধরে বিভিন্ন কমিউনিটির মেধাবী তরুণদের তুলে নিয়ে আসছে। স্থানীয় সাংসদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। বিভিন্ন সময় নানা প্রকল্পের মাধ্যমে হাউজ অফ পার্লামেন্টর সাথে আরো বেশী করে সম্পর্ক গড়ে তোলতেও কাজ করছে। গেল নির্বাচনে যেভাবে বিএমই কমিউনিটির ভোট ব্যাংক নাড়া দিয়েছে তাতে করে অদূর ভবিষ্যতে প্রাইম মিনিস্টার বিএমই কমিউনিটির এমনটি চিন্তা করাও অসম্ভব কিছু না বলেও জোড় দাবী তুলেন শক্তিশালী এই এক্টিভিস্ট।
এ বছরের সংসদীয় ছায়া প্রকল্পে বিএমই কমিউনিটির অন্তর্ভূক্ত রাজনীতিতে সম্ভাবনাময় এমন ৩০০ জনের আবেদনের প্রেক্ষিতে মাত্র সায়ত্রিশ জনকে এ প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। এর মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশী স্কানতফ কনস্টিটুয়েন্সির লতিফ মিয়া। লতিফ মনে করেন ব্রিস্টল মেয়র মারভির রিস, ব্যারোনাস সায়দা ওয়ার্সী, ফরমার মিনিস্টার হেলেন গ্রান্ড সহ আরো অনেক নেতৃত্ব বেড়িয়ে এসেছে অবিভির সহায়তায়। আর তাই তিনি তার রাজনীতির ভবিষ্যৎ নিয়ে ইতিবাচক পথেই হাটছেন বলে মনে করেন। তিনি আরো বলেন বর্তমানে তিন জন বাঙ্গালী এমপি হাউজ অফ কমন্সে আমাদের গর্বের প্রতীক হয়ে আছেন। তবে অদূর ভবিষ্যতে এ সংখ্যা অবশ্যই বৃদ্বি পাবে। লান্চিং অনুষ্ঠানে প্রত্যেক অংশগ্রহনকারীর সংসদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় স্কানতোফের সংসদ সদস্য নিক ড্যাকিন এমপি বলেন, এ প্রকল্প প্রতি বছর নতুন নেতৃত্ব নিয়ে আসছে।

তিনি তার এলাকা থেকে বিএমই কমিউনিটি তথা বাংলাদেশী কমিউনিটির বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন। স্কানতফের বাংলাদেশী কমিউনিটি ভূমিকা অন্যতম। তিনি তার নির্বাচনী এলাকা থেকে একজন তরুন এবং সম্ভাবনাময় রাজনীতিবীদ হিসাবে লতিফ মিয়ার এ প্রকল্পের সাথে সংযুক্ত হতে দেখে অনেক আনন্দিত হয়েছেন।

 
 
 

এই বিভাগের আরও সংবাদ

 

ক্যালেন্ডার