Wednesday, December 6, 2017 1:48 AM
 
 

‘পরিণতি হবে ভয়াবহ’

প্রকাশিত: December 5, 2017 3:25 pm   আপডেট: December 6, 2017 at 1:48 am
 

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ 

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিলে এর পরিণতি ‘ভয়াবহ’ হতে পারে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ার করেছে জর্দান। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া ন্যায়সম্মত হবে না বলে মনে করছে আরব লীগ। এমন হলে রুদ্ধ হয়ে যেতে পারে দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধানের পথ। নতুন করে সংঘাতে জড়িয়ে পড়তে পারে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েল। এরই মধ্যে ফিলিস্তিন মুক্তি আন্দোলনের সশস্ত্র সংগঠন হামাস ইসরায়েলের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যুদ্ধের হুমকি দিয়েছে। এদিকে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক পত্রিকা মিডল ইস্ট আই জানিয়েছে, ফাঁস হওয়া ট্রাম্পের মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি পরিকল্পনায় ফিলিস্তিনের নিরাপত্তার ভার ইসরায়েলের ওপর দেওয়া হয়েছে। ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে, ফিলিস্তিনের সার্বভৌমত্ব বলে কিছু থাকবে না। খবর বিবিসি, সিএনএন ও রয়টার্সের।

আশঙ্কা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ এক ঘোষণায় দেশটির দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নিতে পারেন, যা হবে জেরুজালেমকে ইসরায়েলি রাজধানী হিসেবেই স্বীকৃতি দেওয়া। এমন আশঙ্কা থেকেই গভীর উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে ফিলিস্তিন। এ ধরনের কোনো ঘোষণা না দেওয়ার জন্য ট্রাম্পকে বোঝাতে ফ্রান্স ও তুরস্কসহ বেশ কয়েকটি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানের সঙ্গে কথা বলেছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। আরব লীগ এবং ইসলামী সংস্থা ওআইসিকে জরুরি বৈঠকেরও আহ্বান জানিয়েছে ফিলিস্তিন।

গতকাল সোমবার ভোরের দিকে জর্দানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আয়মান সাফাদি এক টুইটে জানান, যুক্তরাষ্ট্র নিজের দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিলে তা আরব ও মুসলিম বিশ্বে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি করবে। এর পরিণতি ভয়াবহ হতে পারে। তিনি টেলিফোনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনকে এ বিষয়ে হুঁশিয়ার করেছেন। তিনি টুইটে আরও বলেন, ইসলায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি প্রচেষ্টাকে মারাত্মক ঝুঁকিতে ফেলবে এ সিদ্ধান্ত।

আগের দিন আবর বিশ্বের শীর্ষ সংগঠন আরব লীগের প্রধান আহমেদ আবুল গেইত উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কায়রোয় এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, মধ্যপ্রাচ্য ও পুরো বিশ্বের স্থিতিশীলতায় ধসে পড়তে পারে- এ কথা বিবেচনায় না নিয়ে কেউ কেউ জোর করে এ ধরনের পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছেন। আবুল গেইত আরও বলেন, এ ইস্যুর ওপর নিবিড় পর্যবেক্ষণ করছে আরব এবং ট্রাম্প যদি এ ধরনের ঘোষণা দিয়েই ফেলেন, তখন অবস্থান কী হবে সে বিষয়ে সমন্বয়ের জন্য আরব ফিলিস্তিন ও আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে আরব লীগ।

জর্দানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর টুইটের ঘটনায় প্রকাশ্যে এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে ট্রাম্পের জামাতা ও তার মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার গত রোববার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, প্রেসিডেন্ট তার ইচ্ছানুযায়ী যথাসময়ে ঘোষণা দেবেন। তবে এখনও তিনি বিকল্প বিষয়গুলো নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছেন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের টেলিভিশন চ্যানেল ডব্লিউএসবি জানিয়েছে, তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনের জন্য ভবনের নকশা চূড়ান্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্র এ সিদ্ধান্ত নিলে তা ফিলিস্তিন সংকটের থদ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধান হুমকির মুখে পড়বে বলে ফিলিস্তিনি নেতারা আগেই সতর্ক করেছেন। ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলকে দুটি স্বতন্ত্র স্বাধীন দেশের মর্যাদা দেওয়ার আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টাই দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধান হিসেবে পরিচিত। ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর পূর্ব জেরুজালেম দখল করে ইসরায়েল।

 
সংবাদটি পড়া হয়েছে 1177 বার
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

ক্যালেন্ডার